Skip to content

উপন্যাস কাকে বলে ? উপন্যাস কত প্রকারের হয়ে থাকে

উপন্যাস কি অথবা উপন্যাস কাকে বলে (What is Novel in Bengali), উপন্যাস কত প্রকার, প্রথম কত শতকে বাংলায় উপন্যাস রচনা করা হয় এবং প্রথম কে উপন্যাস রচনা করেন এসব বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আমরা জানবো।

এমনিতে সাহিত্য কাকে বলে এ বিষয়ে আগের আর্টিকেলে আমি আপনাদের বলেছি।

তাহলে চলুন জেনে নিই উপন্যাস মানে কি?

উপন্যাস কি বা উপন্যাস কাকে বলে?

উপন্যাস কাকে বলে

সাহিত্যের যে সকল শাখা প্রশাখা রয়েছে সেগুলোর মধ্যে উপন্যাস অন্যতম একটি। শুধু তাই নয়, পাঠকসমাজে উপন্যাসই সর্বাধিক বহুল পঠিত এবং জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে।

উপন্যাস এর ইংরেজি প্রতিশব্দ হলো Novel. উপন্যাসে কোন একটি কাহিনি বর্ণিত হয়ে থাকে এবং সেই কাহিনিটি গদ্য আকারে লিখিত হয়ে থাকে।

কিন্তু পূর্বে এমন এক সময় ছিলো যখন এই কাহিনি গদ্য আকারে লিখা হতো। তখন অবশ্য তাকে উপন্যাস বলা হতো না।

যেমন, বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগে সব ধরনের মঙ্গলকাব্য গদ্যে রচিত হতো এবং সেগুলোতে কোন গল্প বা কাহিনিই প্রকাশিত হয়েছে, কিন্তু তবুও এগুলোকে উপন্যাস না বলে কাব্যই বলা হতো, যেহেতু কবিতার ন্যায় তা ছন্দে রচিত হয়েছে।

উপন্যাস রচিত হয় গদ্য ভাষায়, এই তথ্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ছন্দোবদ্ধ রচনার অনেক পরে যেহেতু গদ্যের আবির্ভাব তাই অপেক্ষাকৃত আধুনিক কালেই গদ্যে কাহিনি লিখা হয়েছে, যেমন – গল্প বা ছোটগল্প, উপন্যাস, রম্যকাহিনি ইত্যাদি।

উপন্যাসের প্রধান উপজীব্য হলো প্লট (Plot)।

এই প্লট বা আখ্যানভাগ তৈরি হয় মূলত গল্প ও তার ভিতরে উপস্থিত বিভিন্ন চরিত্রের সমন্বয়ে।

তাহলে উপন্যাস কি বা উপন্যাস কাকে বলে এ বিষয়ে উপরে আশা করি আপনারা জানতে পেরেছেন।

বাংলা উপন্যাসের ইতিহাস

যিনি উপন্যাস রচনা করেন তাকে বলা হয় ঔপন্যাসিক।

বাংলা ভাষায় প্রথম সার্থক এবং কালজয়ী ঔপন্যাসিক হলো বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। অনেকের মতে তিনি এখন পর্যন্ত একজন শ্রেষ্ঠ ঔপন্যাসিক।

ঊনিশ শতকের আগে বাংলা ভাষায় কোন উপন্যাস রচনা করা হয়নি। বাংলা ভাষায় প্রথম উপন্যাস রচনা করেন বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। তিনি ইংরেজি উপন্যাস পাঠ করে অনুপ্রাণিত হয়ে উপন্যাস রচনার কাজে হাত দেন।

তার কপালকুন্ডলা, বিষবৃক্ষ, চন্দ্রশেখর ইত্যাদি হলো কালজয়ী কথাসাহিত্য।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের পরে মহৎ ঔপন্যাসিক বলতে আমরা প্রধানত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও শরৎচন্দ্র চট্টপাধ্যায়কে বুঝে থাকি। একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, পৃথিবীতে যত বাঙালি রয়েছে তাদের ভিতরে শরৎচন্দ্রই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি পঠিত এবং অধিক জনপ্রিয়।

উপন্যাস কত প্রকারের হয়ে থাকে?

উপন্যাস অনেক রকমের হতে পারে।

যেমন – ঐতিহাসিক উপন্যাস, সামাজিক উপন্যাস, কাব্যধর্মী উপন্যাস, ডিটেকটিভ উপন্যাস, মনোবিশ্লেষণধর্মী উপন্যাস ইত্যাদি।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের সময়কালে ঐতিহাসিক উপন্যাস সকলের কাছে খুবই জনপ্রিয় ছিল।তার সমসাময়িক রমেশচন্দ্র দত্ত তারই মতো বহু ইতিহাস আশ্রিত উপন্যাস রচনা করেছিলেন। যেমন – মাধবী-কঙ্কন, রাজপুত জীবনসন্ধা, মহারাষ্ট্র-জীবনপ্রভাত ইত্যাদি।

তবে শরৎচন্দ্র চট্টপাধ্যায় এতটাই বেশি জনপ্রিয় ছিলেন যে, তিনি বাঙালি পাঠকসমাজকে মনমুগ্ধ করে জয় করে নেন।

সর্বশেষ

তাহলে উপন্যাস কি বা উপন্যাস কাকে বলে (What is Novel in Bengali) এবং উপন্যাস কত প্রকারের হয়ে থাকে এসব বিষয়ে আজকের এই আর্টিকেলটিতে আশা করি আপনারা জানতে পেরেছেন।

যদি আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে তাহলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন। আর এই বিষয়ের জড়িত কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

অবশ্যই পড়ুন –

Leave a Reply

Your email address will not be published.