কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো ? একদম professional ভাবে

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো: Youtube থেকে টাকা আয় করার বিষয়ে আমরা সকলেই জানি। ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করে advertisements দেখানোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়। অনেক ইউটিউবার তাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করছেন।

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো

ইউটিউব এর জন্য কিভাবে ভিডিও বানাবো?

আর যখন কথা আসে, Youtube থেকে আয় করার তখন আমাদের অবশ্যই ভিডিওর উপরে পুরো focus করতে হয়।

কেননা, লোকেরা যে আপনার ভিডিও দেখবেন, তো এজন্য ভিডিও অবশ্যই ভালোভাবে তৈরি করতে হবে এবং ভিডিওর ভেতরে ভালো ভালো তথ্য বা information থাকতে হবে।

আমরা যারা ইউটিউবে নতুন চ্যানেল তৈরি করে থাকি তাদের মাথায় “ইউটিউব ভিডিও কিভাবে বানাবো” এই প্রশ্নটি অবশ্যই জেগে থাকে।

তাই, আপনিও যদি এ বিষয়ে জানতে চান, তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আজকের এই আর্টিকেলের আমি কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানানো যায় এ বিষয়ে আপনাদের সবকিছু বলে দিব।

এমনিতে ইউটিউবে ভিডিও বানানোর আইডিয়ার বিষয়ে আমি আগের আর্টিকেলে আপনাদের বলেছি।

আপনার যদি কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ না থাকে তবুও আপনি কেবল মোবাইল দিয়ে সহজে ইউটিউব ভিডিও বানাতে পারবেন। মোবাইল দিয়ে ইউটিউব ভিডিও বানানো অনেক সহজ। মোবাইল দিয়ে কিভাবে ভিডিও এডিট করা যায়, ইউটিউব ভিডিও বানানোর অ্যাপস এসবের বিষয়ে যদি আপনি শিখে নেন তাহলে computer অথবা pc ছাড়াই আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল চালাতে পারবেন।

কেননা আজকাল মোবাইল দিয়ে high quality ভিডিও আমরা বানাতে পারি।

মনে রাখবেন,

বর্তমানে আপনি যদি একজন সফল ইউটিউবার হতে চান তাহলে আপনার মধ্যে creativity অবশ্যই থাকতে হবে।

কেননা, creativity না থাকলে লোকেরা আপনার ভিডিওতে ভালো কিছু জানতে পারবেন না।

এখনকার সময়ে Youtube Channel থেকে টাকা আয় করা একটি ভালো লাভজনক ক্যারিয়ার হয়ে উঠেছে। বেশিরভাগ লোকেরা ইউটিউব চ্যানেল চালানোর প্রফেশনাল career হিসেবে গ্রহণ করছেন।

আর এজন্য যেকোনো একটি ক্যাটাগরি বা টপিক এর উপরে ইউটিউবে প্রতিদিন হাজার হাজার ভিডিও লোকেরা তাদের চ্যানেলে আপলোড করছেন। আর এজন্য ইউটিউব প্লাটফর্মে সকল topic এর প্রচুর competition সৃষ্টি হয়েছে।

এখন বলতে গেলে, যেহেতু audience রা তাদের প্রয়োজনের যেকোনো বিষয়ে ইউটিউবে সার্চ করলে হাজার হাজার ভিডিও পেয়ে যান, তাই এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো ভিডিও গুলোই তারা দেখে থাকেন।

আর এরকম সময়ে আপনি যদি ভালো ভিডিও বানিয়ে আপনার চ্যানেলে আপলোড না করতে পারেন তাহলে ইউটিউবে সফলতা পাওয়াটা আপনার জন্য কঠিন হয়ে যাবে।

তাই, একটি সেরা ইউটিউব ভিডিও কিভাবে বানাবো এ বিষয়ে নিচে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত আমি ভালোভাবে আলোচনা করব।

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো ?

বর্তমানে ইউটিউবে যে কোন বিষয়ে competition lavel অনেক high রয়েছে এ বিষয়ে আগেই আমি আপনাদের বলেছি।

ইউটিউবে সফল হতে হলে অথবা প্রফেশনাল ইউটিউবার হতে হলে আপনার competitor দের চেয়ে ভালো কোয়ালিটির ভিডিও তৈরি করা খুবই জরুরী।

যারা টেকনোলজি (technology) ক্যাটাগরির ভিডিও তৈরি করে থাকেন তাদের ভিডিওতে ভালো ভালো information প্রদান করা অবশ্যই প্রয়োজন এবং এগুলো কম্পিটিটরদের থেকে উন্নত করতে হবে।

আর যারা funny video এবং music video তৈরি করে থাকেন তাদের ক্ষেত্রেও এ বিষয়টি মাথায় রাখা আবশ্যক।

এখন চলুন ইউটিউব ভিডিও বানাতে কি কি প্রয়োজন প্রফেশনাল ভাবে কিভাবে ইউটিউব এর জন্য ভিডিও বানানো যায় এসব বিষয় নিয়ে ভালোভাবে জেনে নিই।

প্রফেশনাল ইউটিউব ভিডিও কিভাবে বানাতে হয় ?

নিচে আমি সকল points গুলো এক এক করে আলোচনা করেছি। একটি high quality সম্পন্ন ভিডিও বানানোর জন্য এসব বিষয়ের প্রতি নজর রাখা খুবই প্রয়োজন।

1. Select a parfect niche

প্রথমেই আপনাকে একটি নিস বা বিষয় select করতে হবে। যেটি আপনার চ্যানেলের মূল (parent) বিষয় হিসেবে থাকবে এবং আপনার সকল ভিডিও সে বিষয়ের উপর আপলোড (upload) করতে হবে।

এ জন্য যেসব niche এর উপরে চ্যানেল তৈরি করলে সফলতা পাওয়া যাবে সেসব নিস বা কনটেন্ট আইডিয়া আপনি বেছে নিতে পারেন।

এজন্য আমার জনপ্রিয় ইউটিউব কনটেন্ট আইডিয়া বিষয়ক আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

2. Perform competitor research

ইউটিউব এ ভিডিও বানানোর ক্ষেত্রে কম্পিটিটর রিসার্চ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে আমি মনে করি। আপনি যদি টেকনোলজি sector এ ভিডিও বানানো তাহলে আপনাকে এ বিষয়ের উপর আগে নজর দিতে হবে।

আপনি একটি বিষয় ভিডিও তৈরি করতে চাইলে সেই বিষয়ে ইউটিউবে আপনার কম্পিটিটর দিয়ে তৈরি করা ভিডিও দেখতে হবে।

এরপর তাদের ভিডিওতে যদি কোন জায়গায় information এর ঘাটতি থাকে, তাহলে সেটি আপনাকে পয়েন্ট করে নিতে হবে। এরপর আপনি যদি সেই বিষয়ে ভিডিও তৈরি করেন, তাহলে সেসব ঘাটতি আপনাকে fill up করতে হবে এবং এতে আপনার ভিডিওর value বাড়বে।

এছাড়াও আপনি আপনার competitor এর চ্যানেলের comments গুলো দেখতে পারেন। কোন audience কি রকম কমেন্ট করছেন, তারা কি কি জানতে চান এসব বিষয়ে আপনি ধারণা নিতে পারেন।

3. Perform keyword research

কিওয়ার্ড রিসার্চের মাধ্যমে আপনি যেকোন একটি keyword বা search term ইউটিউবে কি পরিমাণে search করা হয় এ বিষয়ে জানতে পারবেন।

Research করা search terms ইইউটিউব ভিডিওর title এবং description এ ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার ভিডিওর performance বাড়িয়ে (optimize) নিতে পারবেন এবং Youtube search থেকে প্রচুর views পাওয়ার সুযোগ থাকবে।

এছাড়া বর্তমানে ইউটিউব এর বিভিন্ন niche এর ভিডিও তৈরি করতে হলে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর প্রয়োজন হয় না।

যদি জনপ্রিয় টপিকের উপরে ভিডিও তৈরি করা হয় এবং সেটা ভালো মানের হয় তাহলে এমনিতেই ভিউস এসে থাকে এবং কোন কোন সময় ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় এবং খুব কম সময়ে প্রচুর পরিমাণে subscribers এবং views চ্যানেল gain করে থাকে।

4. Select a parfect video setup

Youtube এর ভিডিও বানানোর জন্য আপনার একটি ভালো পরিবেশ অবশ্যই থাকা প্রয়োজন।

এক্ষেত্রে আপনি আপনার নিজের ঘরকেই ব্যবহার করতে পারেন video shoot করার জন্য। তবে মনে রাখতে হবে, যখন আপনি ভিডিও বানানোর কাজ করবেন, তখন কেউ যেন বাহির থেকে আপনার কাছে বাধার সৃষ্টি না করে।

এর ফলে আমাদের ভিডিও বানানোর ক্ষেত্রে বড় সমস্যা তৈরি হয়ে থাকে। তাছাড়া যদি আপনার room এর আশেপাশে আওয়াজ থাকে তাহলে সে দিকে খেয়াল রাখা খুবই জরুরি।

এতে আপনার ভিডিও গুলো উপভোগ করতে আমার একটা খারাপ দেখাবে। তাই অবশ্যই মনে রাখবেন, ইউটিউব ভিডিও বানানোর জন্য একটি আলাদা working room বেছে নিতে হবে যেখানে কোন সমস্যা নেই এবং একটি ভালো স্টুডিও সেটআপ (studio setup) ব্যবহার করুন।

5. Think about audio recording

Sound quality একটি ভালো মানের ভিডিও তৈরি করার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কারণ যদি লোকেরা আপনার কথা ভালোভাবে বুঝতে না পারেন তাহলে তারা আপনার ভিডিও ছেড়ে চলে যেতে পারেন।

এই কারণে একটি চ্যানেলে subscribe পাওয়াটা কঠিন হয়ে পড়ে। যদি আপনার কথা বলার সাথে অপ্রয়োজনীয় voice আসতে থাকে তাহলে সেটা খুবই খারাপ বিষয়।

এজন্য আপনাকে একটি ভালো microphone ব্যবহার করতে হবে।

এতে আপনার বলা কথা গুলো একদম clear ভাবে আপনার audience রা বুঝতে পারবেন এবং বাহিরে থেকে আসা sound আপনার ভিডিওতে রেকর্ড হবে না।

6. Good lighting system

আপনার স্টুডিও সেটআপ এ আলোর ব্যবস্থা ভালো রাখুন। এতে আপনার ভিডিও পরিষ্কার হবে এবং quality অনেকটা উন্নত হবে। এর পাশাপাশি,

আপনি মোবাইল ফোন বা ক্যামেরা যেটা দিয়েই ভিডিও তৈরি করেন, আপনার একটি tri-pod এর দরকার অবশ্যই হবে। এর সাথে মোবাইল বা ক্যামেরা রেখে সুন্দরভাবে ভিডিও বানাতে পারবেন।

7. Write video script

প্রথমত আমাদের ভিডিও তৈরি করতে সকলেরই কথা বলার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়ে থাকে।

যেমন, একটি ভিডিওর ভেতরে কোন সময়ে কি বলতে হবে এ নিয়ে নতুন ভিডিও ক্রিয়েটররা সমস্যায় থাকেন।

তবে এর একটি সহজ সমাধান হলো video script লিখে নেওয়া।

ভিডিও স্ক্রিপ্ট হলো, আপনি যে বিষয়ে ভিডিও তৈরি করবেন সে বিষয়ে আপনাকে আগেই ভেবে নিতে হবে, ভিডিওতে কি বলতে হবে সেগুলো সাজিয়ে নিতে হবে এবং ভিডিওর মূল টপিক এবং কনটেন্ট গুলো আপনাকে খাতায় লিখে রাখতে হবে।

এই কাজটি করলে, আপনি যখন ক্যামেরার সামনে কথা বলবেন বা ভিডিও রেকর্ড করবেন তখন আপনার ভিডিওতে তথ্য গুলো উপস্থাপন করতে তেমন problem face করতে হবে না। কারণ আপনি ভিডিওতে কোন সময় কি বিষয় নিয়ে কথা বলবেন এটা আগে থেকেই সাজিয়ে নিয়েছেন।

8. Make short video clip

ইউটিউব এর ভিডিও বানানোর জন্য ছোট ছোট আকারের video clip তৈরি করলে আপনার ভিডিও বানাতে বেশি সুবিধা হতে পারে।

মনে করুন, আপনি একটি ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করবেন এবং সেখানে মূল ৫ টি পয়েন্টের উপর আপনি কথা বলবেন। এখন আপনি এরকম করতে পারেন যে, প্রথমে কেবল একটি পয়েন্ট নিয়ে video shoot করতে পারেন।

এভাবে এক এক করে ৫ টি point এর ৫টি ছোট আকারের ভিডিও ক্লিপ আপনি বানিয়ে নিতে পারেন। এরপর video editing এর সময় ভালোভাবে short clip গুলো একের পর এক ভালোভাবে জোড়া লাগিয়ে নিলেই একটি সম্পূর্ণ ভিডিও কনটেন্ট তৈরি হয়ে যাবে।

তাই আপনার ভিডিও বানাতে সমস্যা হলে এই প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করতে পারেন।

9. ক্যামেরার সামনে কথা বলতে লজ্জা করবেন না

অনেক ইউটিউবার রয়েছেন, যারা ইউটিউবে তাদের ভিডিও তৈরি করতে লজ্জা পেয়ে থাকেন।

তবে, ইউটিউব ভিডিও বানানোর ক্ষেত্রে আপনাকে কোন ধরনের লজ্জা পেলে কাজ হবে না।

এতে আপনার ভিডিও তেমন ভালো হয়ে উঠবে না এবং viewers রা দেখতে পছন্দ করবেন না।

তাই নিজের প্রতি নিজের আত্মবিশ্বাস রেখে ক্যামেরার সামনে কথা বলুন। ভিডিও shoot করার সময় আপনাকে সব সময় comfortable অনুভব করতে হবে।

আপনি সরাসরি যখন কারো সাথে কথা বলেন, সেরকম ভাবে ভিডিওতে কথা বলতে হবে।

তবে আপনি যদি ইউটিউবের জন্য প্রথম ভিডিও তৈরি করছেন তাহলে আপনি ক্যামেরার সামনে কথা বলতে কম বা বেশি লজ্জা এবং ভয় পাবেনই। তবে এই জড়তাটি ধীরে ধীরে আপনার কেটে যেতে থাকবে।

আর আপনি যখন ভিডিও তৈরি করবেন তখন এটা দেখবেন যে, আপনার আশে পাশে বা স্টুডিওর পাশে যেন কেউ না থাকেন। কারণ পাশে কেউ থাকলে এমিনিতেই আপনি ক্যামেরার সামনে আসতে বেশি লজ্জা পাবেন।

10. Interact your audience

আপনি যখন friendly ভাবে ভিডিওর মধ্যে কথা বলবেন তখন দর্শকরা আপনার ভিডিও দেখে ভালো পাবেন। আর সবসময় চেষ্টা করবেন ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে কথা বলার।

কারণ যখন আপনি ক্যামেরার দিকে চোখ রেখে কথা বলবেন তখন যারা আপনার ভিডিওটি দেখবে, তারা মনে করবেন যে আপনি তাদের দিকে তাকিয়ে কথা বলছেন। আর এই কাজটি অবশ্যই করা দরকার একটি মানসম্মত ভিডিও বানানোর জন্য।

ভিডিওতে খুবই free ভাবে কথা বলুন এবং কথা মাঝে হাসি রাখার চেষ্টা করুন।

11. ইউটিউব ভিডিও বানানোর সফটওয়্যার ডাউনলোড করুন

আপনাকে ভিডিও এডিটিং এর ক্ষেত্রে খুব বেশি নজর দিতে হবে। কেননা আপনি ভালো সাউন্ড, ভালো লাইটিং সেটআপ এবং স্টুডিওতে ভিডিওতে তৈরি করলেন, কিন্তু যদি আপনার ভিডিও এডিটিং ভালোভাবে করতে না পারেন তাহলে কখনোই ভিডিওটি ভালো দেখাবে না।

তাই আপনাকে সেরা ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার বা অ্যাপস ডাউনলোড করতে হবে।

আপনি যদি মোবাইল দিয়ে ভিডিও তৈরি করতে চান তাহলে কাইনমাস্টার অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন। এটি মোবাইলে ইউটিউব ভিডিও বানানোর সেরা অ্যাপস হিসেবে বিবেচিত। এটি আপনি গুগল প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন।

আপনি চাইলে কাইনমাস্টার প্রিমিয়াম অ্যাপ ফ্রিতেই ডাউনলোড করে নিতে পারেন এখান থেকে।

12. Make attractive video thumbnail

যখন আপনি ইউটিউবে আপনার একটি ভিডিও আপলোড করেন তখন viewers রা আপনার ভিডিওটি দেখবে কি দেখবে না, তার অনেকটা নির্ভর করে আপনার ভিডিও thumbnail এর উপর।

যদি আপনি একটি আকর্ষণীয় থাম্বনেইল ভিডিওতে যোগ করেন তাহলে সেটি দেখে audience ভিডিওটির দেখার জন্য এর উপরে ক্লিক করবেন।

এজন্য বেশি ভিউস পাওয়ার জন্য ভালো ভিডিও থাম্বনেইল বানানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ইউটিউব ভিডিও বানাতে কি কি লাগে?

আপনি যদি উপরেই লেখা গুলো ভালোভাবে পড়েছেন তাহলে আশা করি ইউটিউব ভিডিও বানানোর জন্য কিসের প্রয়োজন এ বিষয়ে ভালো করেই জেনে গেছেন।

তবুও নিচে আমি সংক্ষিপ্ত আকারে সব প্রয়োজনীও জিনিসগুলোর আপনাদের বলে দিব।

  • একটি ভালো মানের ক্যামেরা থাকা মোবাইল ফোন
  • একটি tri-pod বা camera stand
  • voice recording এর জন্য ভালো মানের microphone
  • সুন্দর এবং কোলাহলমুক্ত setup
  • ভিডিও এডিট করার জন্য ভালো ভিডিও এডিটিং software / application
  • যদি screen recording ভিডিও বানাতে চান তাহলে একটি সেরা screen recorder.

আমার শেষ কথা

তাহলে আশা করি কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো এ বিষয়ের সাথে জড়িত সকল প্রশ্নের উত্তর আমার এই আর্টিকেলের মাধ্যমে পেয়ে গেছেন।

একজন সফল ইউটিউবার হয়ে দাড়ানোর জন্য এ বিষয় গুলোর প্রতি ভালো নজর দেওয়া খুবই জরুরি। তা না হলে আপনার শুধু ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করেই যাবেন এবং কোন ভালো benefit অর্জন করা যাবে না।

যদি আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার অবশ্যই করবেন। আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোন প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

অবশ্যই পড়ুন –

1 thought on “কিভাবে ইউটিউব ভিডিও বানাবো ? একদম professional ভাবে”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *