ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই | সেরা অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি গুলো কি কি

বন্ধুরা আপনারা অনেকেই প্রায় সময় এই প্রশ্নটি করে থাকেন যে, ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই কিভাবে আয় করবো এবং ঘরে বসে অনলাইনে আয় করার পদ্ধতিগুলো কি কি?

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি ঘরে বসে আয়ের বিষয়ে জড়িত এই প্রশ্নগুলোর উত্তর ভালোভাবে আপনাদের আপনাদের দিয়ে দিবো। (Best ways to earn money online in Bangla)

ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই

ঘরে বসে টাকা আয় করার জনপ্রিয় কিছু উপায়।

এমনিতে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার উপায়গুলো অনেক রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আমরা কেবল ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারি।

তবে এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের সেরা এবং লাভজনক কিছু অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি সম্পর্কে জানিয়ে দিবো যেগুলোর মাধ্যমে আপনি কেবল ঘরে বসে থেকেই ইন্টারনেটে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

সাধারণত বর্তমানে আমরা সকলেই করোনা ভাইরাসের খুবই খারাপ একটি পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। যার কারণে আমরা অধিক সময় ধরে ঘরেই রয়েছি।

তাই এই সময়টিকে কাজে লাগিয়ে আমরা ঘরে বসে থেকেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পেতে পারি।

তাছাড়াও আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট কিংবা part time বা full time job করছেন তাহলে আপনিও চাইলে সেরা কিছু অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি অনুসরণ করে ঘরে বসে আয় করতে পারেন।

ইন্টারনেটে কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং সহ আরো প্রচুর sector এর কাজ রয়েছে যেগুলো করে অনলাইন থেকে রোজগার করা সম্ভব।

তাই আপনারও যদি প্রচুর পরিমাণে আগ্রহ রয়েছে এই কাজগুলো করে টাকা ইনকাম করার তাহলে আপনিও অবশ্যই এখান থেকে আয় করতে পারবেন।

তবে এক্ষেত্রে আপনাকে কিছু বাস্তব বিষয় অবশ্যই মেনে নিতে হবে।

মনে রাখবেন, বিশেষ করে অনলাইনের এই কাজগুলো শেখার ক্ষেত্রে কিংবা এগুলো করে রোজগার করার ক্ষেত্রে আপনার প্রচুর পরিমাণে ধৈর্য্য থাকতে হবে। এর পাশাপাশি আপনাকে যথেষ্ঠ চেষ্টা করতে হবে।

মনে রাখবেন, কেবল একদিনেই ইন্টারনেটে কাজ করে আয় করা সম্ভব নয়।

আপনি যদি যথেষ্ট ধৈর্য্য এবং পরিশ্রমের সাথে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি অবশ্যই আয় করতে পারবেন।

এটি নিশ্চিত যে এই অনলাইন ইনকামের পদ্ধতিগুলো আপনাকে কখোনোই ঠকাবে না।

ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই এজন্য সেরা অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি গুলো কি কি ?

ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার প্রচুর উপায় রয়েছে। এগুলোর মাধ্যমে আমি আপনাদের কেবল সেই উপায়গুলোর বিষয়ে চলেছি যেগুলো সকলের কাছে সেরা হিসেবে প্রমানিত এবং অধিক লাভজনক পদ্ধতি।

এই পদ্ধতি গুলোর মাধ্যমে হাজার হাজার লোকেরা অনলাইনে টাকা ইনকাম করছেন। এমনকি এই কাজগুলোকে প্রচুর পরিমাণে লোকেরা তাদের ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছেন।

নিচে আমি যে লাভজনক পদ্ধতি বা কাজগুলোর বিষয়ে বলবো এগুলো আপনারা ল্যাপটপ, পিসি কিংবা মোবাইল দিয়েই করতে পারবেন।

সাধারণত laptop কিংবা desktop ককম্পিউটার থাকলে এই কাজগুলো করতে সুবিধজনক হয়। তবে কোন চিন্তা করবেন না।

আপনার হাতে যে smartphone টি রয়েছে সেটির সাহয্যেই কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন।

তাছাড়া যদি আপনি ঘরে বসে অনলাইন ইনকাম করার পদ্ধতি গুলোর ব্যাপারে জেনে নিতে চাইছেন তাহলে এক্ষেত্রে আপনার এই কাজ সম্পর্কে কিছু পূর্ব অভিজ্ঞতা অবশ্যই থাকতে হবে।

তাছড়া আমার নিচে উল্লেখিত উপায়গুলো আপনার একদমই নতুন হিসেবে মনে হতে পারে।

আর এজন্য আপনার পূর্বের কিছু অভিজ্ঞতা না থাকলে কাজগুলো প্রথম থেকে শিখতে, বুঝতে এবং শুরু করতে কিছুদিন সময় অবশ্যই লেগে যেতে পারে।

তাই আমার উল্লেখিত পদ্ধতিগুলোর ব্যাপারে যদি আপনার সামান্য জ্ঞান রয়েছে তাহলে তাহলে তো আপনি সহজেই বুঝে যাচ্ছেন।

আর যদি জ্ঞান নাও থাকে তাহলেও আপনাদের আগ্রহ থাকলে প্রথম থেকে শিখে নেওয়ার চেষ্টা করুন, কেননা এগুলো খুবই লাভজনক।

তাহলে চলুন ঘর থেকে কাজ করে অনলাইন থেকে আয় করার সেরা উপায়গুলো কি কি?

Work from home and earn money online (Tips in Bangla)

তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক।

ঘরে বসে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় আয় করার সেরা পদ্ধতি বা উপায়গুলোর তালিকা:

  1. Bloging
  2. YouTube Channel
  3. Content Writing
  4. Web Design
  5. Digital Marketing
  6. Freelancing
  7. Earn from facebook page
  8. Online Tutor
  9. Sell Photos Online
  10. Online Sarvey

চলুন এসব বিষয়ে এক এক করে জেনে নি।

১. Blogging

বলতে গেলে বর্তমানে ঘরে বসে টাকা আয় করার সবচেয়ে সহহ এবং লাভজনক উপায় হলো ব্লগিং।

কেননা ব্লগিং এমন একটি কাজ বা পেশা যেখানে কেবল আর্টিকেল লিখে বা লেখালেখি করে টাকা আয় করা সম্ভব।

সারা বিশ্বজুড়ে প্রচুর পরিমাণে লোকেরা blogging করছেন এবং অনলাইন ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম করছেন।

এমনকি হাজার হাজার লোকেরা ব্লগিংকে তাদের career হিসেবে গ্রহণ করছেন এবং তারা professional ভাবে blogging করছেন।

সোজা ভাবে বলতে গেলে সঠিক নিয়মে ব্লগিং করলে ব্লগ থেকে মাসে সাধারণ চাকরি গুলোর তুলনায় প্রচুর বেশি টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

এমনিতে স্টুডেন্ট থেকে শুরু করে যেকোন part time কিংবা full time পেশার মানুষও ব্লগিং করে উপার্জন করতে পারেন।

ব্লগিং হলো এমন একটি কাজ যেখানে যত বেশি কাজ আপনি করবেন বা যত ভালো কন্টেন্ট আপনি লিখবেন তত ভালো পরিমাণে ইনকাম আপনি করতে পারবেন।

কেননা একটি ব্লগ থেকে আশানুরুপ একটি ইনকাম পেতে হলে প্রতিদিন কমেও ১০০০ (1k) ট্রাফিক বা ভিজিটর থাকতে হবে।

আর এই পরিমাণে ট্রাফিক ব্লগে আসতে আসতে কমপক্ষে ৬ মাস সময় লেগে যেতে পারে।

এরপর আপনি ব্লগে Google AdSense এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

২. YouTube Channel

Blogging যেমন একটি অনলাইনে টাকা ইনকামের একটি লায়াভজনক মাধ্যম। সেই সাথে Yotube channel থেকেও একই নিয়মে টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

বর্তমানে students থেকে শুরু করে প্রত্যেকেই ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে সেখান থেকে টাকা ইনকাম করছেন।

ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য প্রথমে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হয়।

এরপর আপনাকে চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করতে হবে।

আপনাকে নিজে ভিডিও বানিয়ে চ্যানেলে আপলোড দিতে হবে। অন্য কারো বানানো ভিডিও আপলোড করলে হবে না।

আপনি নিজের interest এবং অভিজ্ঞতা অনুসারে যেকোন ধরনের ভিডিও বানিয়ে চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন।

এতে আপনি যে বিষয়ে ভালো পারেন বা যে বিষয়ের উপর আপনার ভালো experience রয়েছে সে বিষয়কে target করে ভিডিও বানাতে পারেন।

আর যখন আপনার চ্যানেলে যখন প্রচুর পরিমাণে লোকেরা subscribe করবে তখন আপনি ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে Google AdSense এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করতে পারবেন।

অর্থাৎ আপনার চ্যানেলটিকে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে মনিটাইজ করানোর জন্য ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা watch time থাকতে হবে।

গুগল এডসেন্স ছাড়াও ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করার জন্য আরো অনেক উপায় রয়েছে। যেমন, affiliate marketing, sponsorship, product promotion ইত্যাদি।

আর একটি কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, ইউটিউব চ্যানেলে সফলতা বা আপনি একজন সফল ইউটিউবার হয়ে একদিনেই দাড়াতে পারবেন না।

এজন্য আপনাকে ধৈর্য্য এবং চেষ্টা করতে হবে।

অনেক ইউটিউবার রয়েছেন যারা কেবল ঘরে বসেই ইউটিউব থেকে হাজার হাজার টাকা উপার্জন করছেন।

তাই আপনার যদি ল্যাপটপ কিংবা পিসি নেই তারপরও আপনি স্মার্টফোন দিয়েই ইউটিউব চ্যানেলে কাজ করতে পারবেন।

৩. Content Writing

যদি আপনার লেখালেখি করার ভালো আগ্রহ রয়েছে কিংবা আপনি কোন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করতে অনেক পছন্দ করে থাকেন তাহলে আপনি ঘরে বসে কনটেন্ট লিখে আয় করতে পারেন।

আপনি যদি লেখালেখি করে ভালো পান এবং একটি part time কাজ খুজছেন তাহলে কনটেন্ট রাইটিং এর কাজ আপনার জন্য সেরা হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।

বর্তমানে অনেক অনলাইন ব্লগ কিংবা news portal রয়েছে যেগুলো কনটেন্ট লিখার মাধ্যমে ইনকাম করার প্রচুর সুযোগ দিয়ে থাকে।

আপনি ১৫০০ কিংবা ২০০০ শব্দের একটি কনন্টেন্ট লিখে কমেও ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন।

তবে এজন্য আপনাকে seo friendly আর্টিকেল লিখা জানতে হবে। আপনি যদি সঠিক ভাবে seo friendly আর্টিকেল লিখে দিতে পারেন তাহলে কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে আয় করার প্রচুর সুযোগ আপনার হাতে থাকবে।

Content writing এর কাজ পাওয়ার জন্য বিভিন্ন অনলাইন ব্লগগুলোর contact পেজে কিংবা তাদেরকে ইমেইল এর মাধ্যমে কাজের খোজ নিতে পারেন।

এছাড়াও ব্লগিং এবং কনটেন্ট রাইটিং এর সাথে জড়িত বিষয়গুলো নিয়ে ফেসবুকে অনেক গ্রুপ রয়েছে সেগুলোতে জয়েন করে আপনি সহজেই কনটেন্ট লিখার কাজ খুজে নিতে পারেন।

৪. Web Design

আপনার যদি ওয়েব ডিজাইন এর কাজগুলো সম্পর্কে ভালো অভিজ্ঞতা বা জ্ঞান রয়েছে তাহলে আপনি ওয়েব ডিজাইন এর কাজ করে আয় করার সুযোগ বর্তমানে প্রচুর রয়েছে।

কেননা এক্ষেত্রে ওয়েবসাইট তৈরি এবং ওয়েবসাইট ডিজাইন করে দেওয়ার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

অনেক অনলাইন company বা agency রয়েছে যারা তাদের clients দের ওয়েবসাইট তৈরি করে দিয়ে কিংবা ডিজাইন করার মাধ্যমে ইনকাম করছেন।

web design and development এর কাজগুলো জানলে আপনি freelancing websites গুলোতে কাজ পেতে পারেন।

অথবা আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে work পেতে পারেন।

ফেসবুকে পেইড advertising এর মাধ্যমে আপনি clients দের খুজে নিতে পারেন।

৫. Digital Marketing

বর্তমানে যেকোন বিজনেসের সাথে অনলাইন মার্কেটিং এর বিষয়টি অবশ্যই জরিত রয়েছে।

কেননা এখন ছোট বড় প্রায় সব ধরনের company বা brand গুলো তাদের প্রডাক্ট বা সার্ভিসের প্রচার বা promotion এর জন্য মার্কেটিং করে থাকেন।

আর এই মার্কেটিং অনলাইনের মাধ্যমে সহজেই করা যায় এবং অনেক বেশি পরিমাণে লোকের কাছে নিজের কোম্পানির বিজ্ঞাপন পৌছে দেওয়া সম্ভব।

আর যেহেতু এই মার্কেটিং ইন্টারনেটের মাধ্যমে চালানো হয় তাই এই প্রক্রিয়াকে বলা হয় ডিজিটাল মার্কেটিং।

আর যেকেউ নিজের ব্যবসার প্রচারের জন্য একজন ভালো এবং দক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার এর খোজ করে থাকেন। যার দাড়া তার কোম্পানির মার্কেটিং সঠিকভাবে চালাতে পারেন।

তাই আপনি যদি একজন দক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার উঠতে পারেন তাহলে এখান থেকে আয় করার সুযোগ প্রচুর রয়েছে এবং দিন দিন বাড়তেই আছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত কয়েকটি মার্কেটিং প্রক্রিয়া হলো সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ইমেইল মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং ইত্যাদি।

৬. Freelancing

আপনি যদি এই প্রশ্নটির উত্তর খুজছেন যে, ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই, কি কি উপায়ে আয় কর‍তে পারি? তাহলে ফ্রিল্যান্সিং আপনার জন্য সেরা হিসেবে প্রমানিত হতে পারে।

কারণ, বর্তমান সময়ে প্রচুর পরিমাণে লোকেরা ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করছেন।

অনেকেই ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করা বলতে সবসময় ফ্রিল্যান্সিং কে বুঝে থাকেন এবং ফ্রিল্যান্সিং কে অনেক বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে।

স্টুডেন্টরা থেকে শুরু করে তরুণ এমনকি সর্বস্তরের লোকেরা ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনে টাকা আয় করছেন।

আর আপনিও চাইলে freelancing sector এ কাজ শুরু করতে পারেন।

এজন্য আপনাকে সঠিক পরিকল্পনার সাথে কাজ শুরু করতে হবে।

প্রথমে আপনাকে যেকোন বিষয়ের উপর ভালোভাবে কাজ শিখে নিতে হবে। অর্থাৎ যে বিষয়ের উপর ফ্রিল্যান্সিং করবেন সে বিষয়ের সাথে জরিত কাজগুলো সম্পর্কে যথেষ্ট অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে।

যেমন, web design and development, graphics design, content writing, seo, digital marketing ইত্যাদি।

আপনি যে ফ্রিলান্সিং সাইটগুলোতে কাজ পেতে পারেন সেগুলো হলো, fiverr, upwork, freelancer, peopleperhour, elance ইত্যাদি।

মনে রাখবেন, ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে সফলতা অর্জনের জন্য ধৈর্য্য সহকারে অবশ্যই কাজ করতে হবে।

৭. Earn from facebook page

ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করাটা বর্তমানে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। অনেকেই নিজের ফেসবুক পেজ থেকে টাকা ইনকাম করছেন।

ফেসবুক পেজ থেকে earn করার জন্য প্রথমে একটি পেজ খুলে নিতে হবে। এরপর পেজে লাইক বা ফলোয়ার বাড়িয়ে নিতে হবে।

পেজে ভিডিও আপলোড করতে হবে।

এরপর সেই ভিডিও মনিটাইজ করানোর মাধ্যমে টাকা আয় করা সম্ভব।

তাছাড়া বর্তমানে আপনি চাইলে একটি গেমিং ফেসবুক পেজ খুলে সেখানে গেমিং করতে পারেন।

ফেসবুক গেমিং এর বিষয়টি খুবই জনপ্রিয়। কিন্তু এজন্য আপনার কম্পিউটার অবশ্যই থাকতে হবে।

৮. Online Tutor (অনলাইন ক্লাস)

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা ব্যবস্থায় কিছু পরিবর্তন অবশ্যই এসেছে।

এখন সারা দেশের ছাত্র ছাত্রীরা ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে পরাশোনা করার প্রতি বেশি আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

এবং প্রচুর পরিমাণে স্টুডেন্টরা অনলাইন ক্লাস করছেন।

তাই আপনি যদি একজন শিক্ষক কিংবা স্টুডেন্টও হয়ে থাকেন এবং আপনার লেখাপড়া বিষয়ক কোন সাবজেক্টের বিষয়ে ভালো অভিজ্ঞতা রয়েছে তাহলে আপনি অনলাইনে ছাত্র ছাত্রীদের ক্লাস করানোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

যেহেতু অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাস করানো হবে তাই এক্ষেত্রে আপনাকে জায়গা নিয়ে কোন ভাবতে হবে না, পাশাপাশি একসাথে অনেক জনকে অনলাইন ক্লাস করাতে পারবেন।

আমার শেষ কথা,,

বন্ধুরা আশা করি “ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই এক্ষেত্রে কি কি অনলাই ইনকাম পদ্ধতি রয়েছে” (How to earn money online by working from home) এর সঠিক উত্তর এই আর্টিকেলের মাধ্যমে পেয়ে গেছেন।

এমনিতে ইন্টারনেট থেকে আয় করার অনেক পদ্ধতি রয়েছে। এগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় কিছু পদ্ধতি আমি আর্টিকেলে উল্লেখ করেছি।

আশা করি আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *