জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব কে ? তিনি কোন দেশের নাগরিক

“জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব কে” এই প্রশ্নটির উত্তর এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জানবো। সেই সাথে জাতিসংঘ কি, জাতিসংঘ সৃষ্টির ইতিহাস, জাতিসংঘের সদর দপ্তর কোথায়, জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব কে, বাংলাদেশ কত সালে জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে এসব প্রশ্নের উত্তর জানবো।

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব কে

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিবের নাম কি ?

জাতিসংঘ কি ? (What is UN in Bengali)

মানবাধিকার ছাড়া কোনো মানুষ পূর্ণাঙ্গভাবে বিকশিত হতে পারে না। মানবাধিকার হলো প্রত্যেক মানুষের বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু সুযোগ সুবিধার অধিকার ।

আমাদের পৃথিবীতে দুটি বড় বড় যুদ্ধ হয়েছে। এগুলো হলো প্রথম বিশ্বযুদ্ধ ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। দুটি যুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে। লাখ লাখ মানুষ যুদ্ধে নিহত হয়েছে।

১৯১৪ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ব্যাপকতা এবং ধ্বংসলীলা মানুষকে যুদ্ধের প্রতি বীতশ্রদ্ধ ও শান্তির জন্য আগ্রহী করে তোলে। গঠন করা হয় আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান “লীগ অব নেশনস”। কিন্তু এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বশান্তি ও নিরাপত্তা অর্জনে বার্থ হয়।

১৯৩৯ সালে শুরু হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। মানব সভ্যতার ইতিহাসে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের চেয়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ ছিল আরও কলঙ্ক্ষিত ও বিভীষিকাময়।

এসময়ে বিশ্বের নেতৃস্থানীয় দেশগুলো একজোট হয়ে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতি সংঘ গঠন করে। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠাসহ নারী ও শিশুর অবস্থান উন্নয়নে জাতিসংঘ অনেক ভূমিকা রেখে চলেছে।

জাতিসংঘ মানবাধিকার এবং বিশ্বশান্তি রক্ষার জন্য বিভিন্ন দেশে প্রয়োজনে শান্তিরক্ষী বাহিনী প্রেরণ করে থাকে।

জাতিসংঘ সৃষ্টির ইতিহাস

যুদ্ধ কখনও জাতিতে জাতিতে সংকট নিরসনের পথ হতে পারে না। যুদ্ধ ডেকে আনে ভয়ঙ্কর ধ্বংসলীলা এবং মানবজাতির জন্য অবর্ণনীয় দুর্ভোগ ও অশান্তি।

বিশ শতকের ইতিহাসে পৃথিবী জুড়ে দুটি বিশ্বযুদ্ধ ঘটে গেছে। গত শতকে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ (১৯১৪-১৯১৮) এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ (১৯৩৯-১৯৪৫) সংঘটিত হয়।

মূলত জাতিগত দ্বন্দ্ব নিরসনে মধ্যস্থতাকারী শান্তিকামী জনতা যুদ্ধের ধ্বংসলীলায় চুপ করে থাকেনি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পরে ১৯২০ সালের ১০ ই জানুয়ারি বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে “লীগ অব নেশনস” সৃষ্টি হয়েছিল।

কিন্তু “লীগ অব নেশনস” এর সাংগঠনিক দুর্বলতা ও অন্যান্য কারণে বিশ্বশান্তি বিধানে তা ব্যর্থ হয়।

১৯৩৯ সালে পুনরায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ধ্বংসলীলা পৃথিবীকে গ্রাস করে।

এতে লক্ষ লক্ষ মানুষ নিহত ও আহত হয়। অনেকে গৃহহারা হয় ও পঙ্গুত্ব বরণ করে। প্রতিটি দেশ হারায় তাদের কর্মক্ষম যুবসম্প্রদায়কে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহতা বিশ্ব বিবেককে ভীষণভাবে নাড়া দেয় ও আতঙ্কিত করে তোলে । এ প্রেক্ষাপটে বিশ্বের তৎকালীন নেতৃবৃন্দ শান্তি ও নিরাপত্তা বিধানের জন্য আর একটি নতুন আন্তর্জাতিক সংস্থা গঠনের প্রয়োজনীয়তা উপলদ্ধি করেন।

এরপর ১৯৪৩ সালে তেহরানে ও মস্কোতেসমসাময়িক বিশ্বের ৪ টি প্রধান শক্তির একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । উক্ত সম্মেলনে ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ফ্রান্সের প্রতিনিধিরূপ সম্মিলিত জাতিসংঘ গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

অবশেষে ১৯৪৫ সালের ২৪ শে অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে জাতিসংঘ আত্মপ্রকাশ করে।

এজন্য প্রতি বছর ২৪ শে অক্টোবরকে জাতিসংঘ দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

বিশ্বের স্বাধীন রাষ্ট্রসমূহ জাতিসংঘের সদস্য। পাঁচটি প্রধান অজ্ঞা এবং একটি সেক্রেটারিয়েট নিয়ে জাতিসংঘ গঠিত।

জাতিসংঘের পাঁচটি অঙ্গ সংস্থা হচ্ছে, সাধারণ পরিষদ, নিরাপত্তা পরিষদ, অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ, অছি (তত্ত্বাবধায়ক) পরিষদ এবং আন্তর্জাতিক বিচারালয় বা আদালত।

জাতিসংঘের সকল সদস্য রাষ্ট্র নিয়ে সাধারণ পরিষদ গঠিত। সাধারণ পরিষদকে বিতর্ক সভা বলেও অভিহিত করা যায়।

নিরাপত্তা পরিষদ হচ্ছে জাতিসংঘের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকরী পরিষদ। ৫ টি স্থায়ী ও ১০ টি অস্থায়ী মোট ১৫ টি সদস্য রাষ্ট্র নিয়ে এটি গঠিত।

৫ টি স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্র হচ্ছে: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র , গ্রেট ব্রিটেন , ফ্রান্স , রাশিয়া ও চীন ।

এদের প্রত্যেকের ভেটো প্রদান বা কোনো প্রস্তাব নাকচ করে দেওয়ার ক্ষমতা আছে।

অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের কাজ হচ্ছে বিশ্বের উন্নয়ন ও অগ্রগতি সাধন করা। স্বাধীনতাপ্রাপ্ত নয় এরূপ বিশেষ এলাকার তত্ত্বাবধানের জন্য অছি পরিষদ গঠিত।

আন্তর্জাতিক বিবাদ মীমাংসা হচ্ছে আন্তর্জাতিক বিচারালয়ের কাজ। নেদারল্যান্ডসের হেগ শহরে এর কার্যালয় অবস্থিত।

সেক্রেটারিয়েট হচ্ছে জাতিসংঘের প্রশাসনিক বিভাগ । সেক্রেটারি জেনারেল বা মহাসচিব প্রধান নির্বাহী আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে জাতিসংঘের সদর দপ্তর অবস্থিত।

জাতিসংঘের সদস্যপদ জাতিসংঘ চার্টার বা সনদের নিয়মকানুন মেনে চলতে আগ্রহী বিশ্বের যে কোনো শান্তিকামী দেশ জাতিসংঘের সদস্য হতে পারে। বর্তমানে বিশ্বের ১৯৩ টি দেশ জাতিসংঘের সদস্য ।

বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘের ১৩৬ তম সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়।

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব কে ?

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব হলো অ্যান্টনিও গুতারেস।

তিনি পর্তুগালের নাগরিক। অ্যান্টনিও গুতারেস ২০১৭ সালের ১ লা জানুয়ারি জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে নিযুক্ত হন।

জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন এর পর তিনি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

  • বালাদেশ কত সালে জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে? বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে।
  • জাতিসংঘের সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত? জাতিসংঘের সদর দপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে অবস্থিত।
  • জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব কে? জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব ছিলেন ট্রিগভেলি।
  • জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব কোন দেশের নাগরিক ছিলেন? জাতিতিসংঘের প্রথম মহাসচিব ট্রিগভেলি নরওয়ের নাগরিক।
  • জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব কোন দেশের নাগরিক? জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতারেস পর্তুগালের নাগরিক।

জাতিসংঘের উদ্দেশ্য

জাতিসংঘ সনদে সুস্পষ্টভাবে বিশ্বশান্তি ও সহযোগিতা বিধানের লক্ষ্যে জাতিসংঘের উদ্দেশ্য লিপিবদ্ধ আছে।

উদ্দেশ্যসমূহ হলো,

  • শাস্তি ভঙ্গের হুমকি, আক্রমণাত্মক প্রবণতা ও কার্যকলাপ দূর করে বিশ্বশান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।
  • সকলমানুষের সমান অধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে বিভিন্ন জাতির মধ্যে সহযোগিতা ও বন্ধুত্ব জোরদার করা।
  • অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে সকল জাতির মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তোলা।
  • জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলের স্বাধীনতা ও মৌলিক অধিকারের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ গড়ে তোলা।
  • আন্তর্জাতিক আইনের সাহায্যে আন্তর্জাতিক বিরোধের শান্তিপূর্ণ সমাধান নিশ্চিত করা।
  • প্রত্যেক জাতির আত্মনিয়ন্ত্রণ অধিকারের স্বীকৃতি ও তা সমুন্নত রাখা।
  • উদ্দেশ্যসমূহবাস্তবায়নের জন্য জাতিসংঘের কার্যধারা অনুসরণ করা।

অবশ্যই পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *